Home বিশেষ প্রতিবেদন বিপর্যস্ত জনজীবন, বাজার তুমি কার?

বিপর্যস্ত জনজীবন, বাজার তুমি কার?

দাখিনের সময় ডেস্ক:

মূল্যস্ফীতির চাপে বিপর্যস্ত জনজীবন। এরই মধ্যে কিছু সুযোগসন্ধানী অসাধু ব্যবসায়ী পকেট কাটছে ক্রেতাদের। পণ্যের সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকা সত্ত্বেও অস্বাভাবিকভাবে পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছেন তারা। ভোক্তাদের জিম্মি করতে তৈরি করা হচ্ছে পণ্যের কৃত্রিম সংকটও। দেশে উৎপাদিত পণ্যের বিতরণের ক্ষেত্রে মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য অপ্রতিরোধ্য। এখন সাধারনের অসহায় প্রশ্ন করছেন, ‘বাজার তুমি কার?’

আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবৃদ্ধি, জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি, আমদানি ও পরিবহন খরচ, সরবরাহে ঘাটতি- নানা অজুহাতে অতি অল্পসময়ে অনৈতিকভাবে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিতে মরিয়া এ ধরনের ব্যবসায়ী। সুযোগ নিচ্ছে মধ্যস্বত্বভোগীরাও। সর্বশেষ জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে পোয়াবারো হয়েছে এদের। পরিস্থিতি এমন দাঁড়িয়েছে, বাজারকাঠামোর ওপর যার প্রভাব যত বেশি সে তত বেশি দাম বাড়াচ্ছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চাহিদা-জোগানের সূত্র মেনে নয়, বাজারে পণ্যের দাম ওঠানামা করছে সিন্ডিকেটের ইশারায়। বাজার ব্যবস্থাপনা ও সরবরাহ ব্যবস্থার ওপর নজরদারির ঘাটতির সুযোগ নিচ্ছে অসাধুরা। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার পর পরিবহন খরচের দোহাই দিয়ে পণ্যমূল্য অতিরিক্ত বাড়ানো হচ্ছে। এখন দেশে যেন দাম বাড়ানোর অসুস্থ এক প্রতিযোগিতা চলছে। এর ফল- ডিমের দাম কয়েক দিনেই আকাশচুম্বী, ব্রয়লার মুরগি এখন আর সহজলভ্য নয়, ভালো ফলনের পরেও চালের দামে আগুন, সরকারের সিদ্ধান্তের আগেই বেড়ে গেছে চিনির দাম, সয়াবিন তেলের বোতলে আবারও সংকট, সস্তার সবজি কিনতেও বেজায় অস্বস্তি হচ্ছে ভোক্তার। ডাল, তেল, পেঁয়াজ, রসুন, মরিচ থেকে শুরু করে অন্যান্য পণ্যের দামেও আগুন।

বাজার তদারকিতে বাণিজ্য, খাদ্য, কৃষি মন্ত্রণালয়সহ সরকারের নানা সংস্থা কাজ করলেও তাদের অদক্ষতা এবং সমন্বয়হীনতার চিত্রই বারবার প্রকট হয়ে উঠছে। কর্তৃপক্ষের সমন্বয়হীনতা ও বাজার ব্যবস্থাপনার ফাঁক গলে ঘুরেফিরে জয় হচ্ছেসেই পুরনো সিন্ডিকেটের কারসাজিরই।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) বিশেষ ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমান আমাদের সময়কে বলেন, প্রতিযোগিতা কমিশন ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে আরও কার্যকর হতে হবে। আমরা দেখি, প্রতিযোগিতামূলক বাজার ব্যবস্থাপনার জায়গায় এক ধরনের সিন্ডিকেটভিত্তিক বাজার পরিচালনার প্রবণতা রয়েছে। আমদানি পর্যায়ে বেশকিছু প্রয়োজনীয় পণ্যে আমরা সিন্ডিকেশন দেখি। সেখানে নতুনদের প্রবেশে কোনো প্রতিবন্ধকতা রয়েছে কিনা খতিয়ে দেখা উচিত। আমদানি থেকে ভোক্তাপর্যায়ে বাজার ব্যবস্থাপনায় কোনো কারসাজি কিংবা ব্যবসায়ীদের আঁতাত আছে কি না সেটাও খতিয়ে দেখতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

বরিশালে মধ্যরাতে ডাকাত আতঙ্ক, পুলিশ বলছে গুজব

দখিনের সময় ডেস্ক বরিশালের বিভিন্ন এলাকার মসজিদ থেকে মঙ্গলবার রাত পৌনে ১২টা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত ডাকাত আসার বিষয়ে সতর্ক করে মাইকিং করা হয়। তবে...

ইন্দোনেশিয়ায় বিয়ে ছাড়া শারীরিক সম্পর্ক নিষিদ্ধ

দখিনের সময় ডেস্ক: ইন্দোনেশিয়ায় বিয়ে ছাড়া যৌন সম্পর্ক স্থাপন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এই আইন অমান্য করলে এক বছর কারাদণ্ড বা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার...

১০ ডিসেম্বর নিয়ে ১৫ দেশের বিবৃতি

দখিনের সময় ডেস্ক: দশ ডিসেম্বর নিয়ে যৌথভাবে বিবৃতি প্রকাশ করেছে আমেরিকাসহ ১৫টি দেশ। ১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস। এ উপলক্ষে বিবৃতি দেওয়া দেশগুলো নিজেদের বাংলাদেশের...

সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে একান্ত মুহূর্তের ভিডিও দিয়ে চিকিৎসককে ব্ল্যাকমেইল

  দখিনের সময় ডেস্ক: সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর কিছু ভিডিও বর্তমান স্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে ব্ল্যাকমেইল করা হচ্ছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) এক চিকিৎসককে। সাবেক...

Recent Comments